না ফেরার দেশে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম : বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে হবেন চিরনিদ্রায় শায়িত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
এনএনবি বাংলা.কম
অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম
ঢাকা : একযুগেরও বেশি সময় ধরে অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্বপালন করে আসছিলেন মাহবুবে আলম (৭১)। জগৎসংসারের মায়া ত্যাগ করে এবার তিনি চলে গেলেন না ফেরার দেশে। রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। (ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।
১৯৯৮ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে ২০০১ সালের ৪ অক্টোবর পর্যন্ত বাংলাদেশের অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল এবং পরবর্তীতে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি বাংলাদেশের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হন। সেই থেকে মৃত্যুর আগপর্যন্ত তিনি নিজের দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। ওই সময়ের মধ্যে তিনি ১৯৯৩-৯৪ সালে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ও ২০০৫-২০০৬ সালে সভাপতি নির্বাচিত হন।
পিতার মৃত্যুসহ তাঁর কর্মজীবন নিয়ে এসব তথ্য এনএনবি বাংলাকে নিশ্চিত করেন মরহুমের ছেলে সুমন মাহবুব। মৃত্যু সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি জানান, বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) রাতে জ্বর অনুভব করেন অ্যাটর্নি জেনারেল। রাত শেষে সকালে অর্থাৎ শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে করোনা পরীক্ষা করানো হয়। রিপোর্ট আসে পজিটিভ। সেদিনই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে তাৎক্ষণিক সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এরমধ্যে দিনগুলো অতিবাহিত হতে থাকে এবং রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) করোনা রেজাল্ট আসে নেগেটিভ। কিন্তু শ্বাসকষ্টের সমস্যাতে উন্নতি হয়নি শারীরিক অবস্থা। এদিকে জানাজার নামাজ ও দাফন নিয়ে সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবি সমিতির সভাপাতি এ এম আমিন উদ্দিন এনএনবি বাংলাকে জানান, সকাল ১১টায় মরদেহটি সুপ্রিমকোর্ট প্রাঙ্গণে আনা হবে। সেখানে আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে হবে জানাজার নামাজ। পরে বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে যথাযথ মর্যাদায় মরদেহ দাফন করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *