যে ক্ষেত্রে পুরুষের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা অন্যায়, জানালেন আইনজীবী রিগ্যান

সৌমিন খেলন

এনএনবি বাংলা.কম

আইনজীবী রিগ্যান ও তার পেজ পোস্ট
ছবি- এনএনবি বাংলা
ঢাকা : বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ! এমন অভিযোগে পুরুষের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা! এটা একজন পুরুষের সাথে কেবলই অন্যায়।
এনএনবি বাংলায় কথোপকথনে এমনই মন্তব্য করেছেন, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী সমাজকর্মী সালাহ উদ্দিন রিগ্যান। এই নিয়ে তিনি নিজের ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট করেছিলেন। সেই পোস্টের সূত্র ধরে এনএনবি বাংলা ও এই আইনজীবীর কথোপকথন।
‘অ্যাডভোকেট সালাহ উদ্দিন রিগ্যান’ পেজে দেয়া পোস্টটি ফলোয়ারদের বেশ দৃষ্টি আকর্ষণ ও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। পোস্টটি ইতোমধ্যে ১৬২ টি শেয়ার, ২৯০ টি কমেন্ট ও ২ দশমিক ২ কে লাইক, রিয়েকশন পেতে সফল হয়েছেন। আইনজীবী রিগ্যান জানান, দেখা যায় ছেলেমেয়ে সম্পর্কের একপর্যায়ে উভয়ের সম্মতিতে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। এভাবে মাস বা বছর পার করে দেন তারা।
পরবর্তীতে দেখা যায় সম্পর্কের টানাপোড়েন শুরু হলে মেয়ে এসে ছেলের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা ঠুকে দেন। এটা একটি স্বৈরাচারী কাজ। একজন পুরুষের সাথে নেহায়েত অন্যায় ছাড়া আর কিছুই না। কোথায় লেখা আছে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিলেই শারীরিক সম্পর্কে জড়াতে হবে! এসব ঘটনায় ছেলেমেয়ে উভয়ই দায়ী আর সেক্ষেত্রে বড়জোর প্রতারণা মামলা হতে পারে। কিন্তু না, দেখা যাচ্ছে এসব ঘটনায় করা হচ্ছে ধর্ষণ মামলা!
কোনটাকে ধর্ষণ বলবো আর বলবো না এমন প্রশ্নের জবাবে আইনজীবী রিগ্যান জানান, মূলত কারো ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক শারিরীক সম্পর্ক স্থাপন করলে সেইটাকে ধর্ষণ বলা হয়। কিন্তু উভয়ের সম্মতিতে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন পরে একতরফা অভিযুক্ত করা, এটা কেমন? দেখা গেলো ছয়মাস আগের ঘটনায় ছয়মাস পরে ধর্ষণ মামলা করেছেন সেক্ষেত্রে কিভাবে মেডিকেল রিপোর্ট দেখাবেন? এখানে কেউ অভিযোগ করলে মিথ্যা আশ্বাসের জন্য প্রতারণার অভিযোগ করতে পারেন।
পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে হলে বিষয়গুলো নিয়ে প্রত্যেককেই আরো গভীরে ভাবতে হবে। প্রয়োজনে আইনে সংশোধন আনা যেতে পারে।  ভেবেচিন্তে নিরপেক্ষ দৃষ্টিভঙ্গি দিলেই এমনটি আর হবে না বলেও মনে করেছেন তিনি। আর এ থেকে কমে যাবে ধর্ষণ মামলার জট বা সংখ্যা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *