হাওরে নৌদুর্ঘটনা এড়াতে নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনের নানা উদ্যোগ

সৌমিন খেলন
এনএনবি বাংলা.কম

হাওরে নৌদুর্ঘটনা এড়াতে নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনের নানা উদ্যোগ | ছবি- খান সোহেল

মদন (নেত্রকোনা) : বর্ষায় হাওরে নৌদুর্ঘটনা বা প্রাণহানী কমিয়ে আনতে জনস্বার্থে নানারকম উদ্যোগ নিয়েছেন নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক (ডিসি) কাজি মো. আব্দুর রহমান।

সেই লক্ষ্যে জেলা প্রশাসক হাওরাঞ্চলের বিভিন্ন নৌঘাটে সচেতনতামূলক কার্যক্রম শুরু করেছেন।

এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার (১২ জুন) দুপুরে জেলার মদন উপজেলার উচিতপুর ঘাট বা পর্যটন কেন্দ্রে নৌকার মালিক, শ্রমিকদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। মালিক-মাঝিদের মধ্যে বিতরণ করা হয় নৌযানে চলাচলের জন্য সুরক্ষা সামগ্রী লাইফ জ্যাকেট ও টিউব।

স্থানীয় প্রশাসন মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. বুলবুল আহমেদ’র সার্বিক ব্যবস্থাপনায় জেলা প্রশাসক মদনে শনিবারের মহৎ এ কর্ম সম্পাদন করেন।

এসময় জেলা-উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং হাওরে চলাচলকারী নৌযানের মালিক-শ্রমিক ও ইজারাদাররা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক (ডিসি) কাজী মো. আব্দুর রহমান বক্তব্য দিতে গিয়ে গৃহীত উদ্যোগ সম্পর্কে বলেন, হাওরাঞ্চলের নৌদুর্ঘটনা এড়াতে কাজ করে যাবে জেলা প্রশাসন।

হাওরে নৌদুর্ঘটনা এড়াতে নেত্রকোনা জেলা প্রশাসনের নানা উদ্যোগ | ছবি- খান সোহেল

করা হচ্ছে বর্ষায় হাওরে চলাচলকারী যাত্রীবাহী নৌযানের তালিকা। জেলার দশ উপজেলায় ২১৩ টি নৌযান চলাচল করে এমন তথ্য জানিয়ে জেলা প্রশাসক জানান, এসব নৌযান চলাচলে ব্যবহার করা হচ্ছে ৩৬ টি ঘাট। এরমধ্যে উচিতপুর পর্যটন কেন্দ্র তথা ঘাট থেকে চলাচল করে ২৬ টি নৌযান।

সকল নৌযানে যাত্রীদের জীবন রক্ষার্থে সকল ঘাট, নৌযানের ফিটনেস, ধারণ ক্ষমতা, চালক নির্বাচন সবকিছু নিয়ে প্রশাসন চালাবে এবার কঠোর নজরদারি। করা হবে চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা। আইনশৃঙ্খলা নিরাপত্তায় গড়ে তোলা হবে পুলিশ ফাঁড়ি ; যেখানে নিরাপত্তায় সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবে পুলিশ সদস্যরা।

এরই সাথে ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকদেরও সচেতন হতে হবে জানিয়ে তাদেরকে উদ্দেশ্য করে জেলা প্রশাসক বলেন, সৌন্দর্য উপভোগে জীবনহানী যেন না হয়। জীবন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সচেতন হলে অনেক বিপদ থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *